‘যে দেশে কামসূত্রের জন্ম, সেদেশে পর্ণ মুভি নিষিদ্ধ কেন?’





ডেক্স রিপোর্ট, টাইমসবাংলা.নেটঃ
এই মুহূর্তে পর্নোগ্রাফি মামলা ও রাজ কুন্দ্রার গ্রেফতার নিয়ে তোলপাড় বলিউড। বহু মডেল, অভিনেত্রীকেই রাজের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে দেখা গিয়েছে। তবে এই মামলায় কিছুটা উল্টো সুরেই গাইলেন প্রাক্তন বলি অভিনেত্রী এবং একসময়ে সালমান খানের প্রেমিকা বলে পরিচিত সোমি আলি।

পর্নোগ্রাফি নিয়ে হইচই প্রসঙ্গে সোমি আলি কিছুটা বিস্ময় প্রকাশ করেন। সোমি আলির প্রশ্ন, ”যে দেশে কামসূত্রের জন্ম, সেখানে পর্ন নিষিদ্ধ কেন?” সোমি আলির কথায়, ”যৌনতা, অশ্লীলতা নিয়ে যত বেশি লুকোচুরি করা হবে, ততই কৌতুহল বাড়বে। ব্যক্তিগতভাবে, যাঁরা পর্নকে পেশা হিসাবে বেছে নিয়েছে, আমি তাঁদের বিচার করি না, যতক্ষণ না সেটা কারোর ক্ষতি করে কিংবা নারী পাচারের মতো অন্যায় কাজে যুক্ত হয়। তবে হ্যাঁ, জোর জবরদস্তি কখনওই কিছু হওয়া উচিত নয়। কেউ যদি স্বেচ্ছায় যৌনতাকে পেশা হিসাবে বেছে নেয়, সেটা নিয়ে অন্য কারোর মাথা ঘামানোর কিছু দেখি না।”

এখানেই শেষ নয়, সোমি আলির কথায়, ”এদেশে যৌন শিক্ষাকে গুরুত্ব দেওয়া উচিত।” ওয়েব সিরিজে অন্তরঙ্গ বা সাহসী দৃশ্যের বিষয়ে সোমির মতামত, তিনি এটাকে সিনেমাটিক এবং শৈল্পিক অগ্রগতি বলে মনে করেন তাঁর কথায়, প্রেমে ঘনিষ্ঠতা থাকতেই পারে, আর সেই প্রেমের দৃশ্য বা ঘনিষ্ঠ দৃশ্য তুলে ধরার মধ্যে তিনি খারাপ কিছুই দেখেন না।

প্রসঙ্গত,একসময় সালমান খানের প্রেমে হাবুডুবু খেয়ে পাকিস্তান থেকে ভারতে এসেছিলেন সোমি আলি। অভিনেত্রী হওয়ার কোনও ইচ্ছা ছিল না, তবুও সালমান খানকে পাওয়ার আশায় অভিনয়কে পেশা হিসেবে নিয়েছিলেন। জনপ্রিয়তাও পেয়েছিলেন তিনি। সালমান খানের সঙ্গে ৮ বছর সম্পর্কে ছিলেন সোমি আলি, তবে সে সম্পর্ক ভেঙে যায়।#







মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

বিশেষ সংবাদ

আইন ও অপরাধ

স্বাস্থ্য

কৃষি ও খাদ্য

গনমাধ্যম

ঘোষনাঃ