মিলাদ দাড়িয়ে-বসে পড়াকে কেন্দ্র করে হামলা-পাল্টা হামলা!





প্রতিবেদক, টাইমসবাংলা.নেটঃ
ফরিদপুরের সালথায় মিলাদ পড়াকে কেন্দ্র কওে মামা-ভাগ্নেদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি হামলার ঘটনা ঘটে। এতে মো. ইদ্রিস কারিগর (৫৫) নামে এক বৃদ্ধ গুরুতর আহত হয়। আহত ইদ্রিস হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এদিকে হামলার ঘটনায় একটি পক্ষ গ্রামের নিরীহ জনসাধারণকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার জুম্মার নামাজের সময় উপজেলার যদুনন্দী গ্রামে একটি মসজিদের ভিতর মিলাদ দাঁড়িয়ে না বসে পড়া হবে, এই নিয়ে ইদ্রিসের সাথে প্রতিবেশি ইমান আলীর ছেলে আফজাল ও লিপনের বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায় সেখানে হামলা-পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটে। এ সময় হামলায় গুরুতর আহত হয় ইদ্রিস। পরে তাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে প্রথমে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে স্থানান্তর করা হয়। ইদ্রিস আর আফজাল-লিপন সম্পর্কে মামা-ভাগ্নে।

আহত ইদ্রিসের স্ত্রী মরিয়ম বেগম ও ভাইয়ের স্ত্রী নাসিমা খানম বলেন, মিলাদ পড়া নিয়ে ইদ্রিসের উপর অতর্কিতভাবে হামলা করে প্রতিবেশী ইমান আলীর ছেলে আফজাল ও লিপন। এতে তার মাথা ফেটে যায়। তিনি এখন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন। হামলায় ইমানের পরিবার ছাড়া অন্য কেউ অংশ নেয়নি।

আরো পড়ুনঃ স্বামীর মৃত্যুর ৩ বছর পরে সন্তানের জন্ম, নবজাতককে মাটি চাপা দেয়ার চেষ্টা!

ইমানের স্ত্রী রোকেয়া বেগম বলেন, মিলাদ পড়া নিয়ে কথাকাটাকাটির একপর্যায় আমার সন্তানদেরকে আগে মারধর করে ইদ্রিস ও তার ভাই সিদ্দিক। তারপর ওরা পাল্টা হামলা করলে আহত হয় ইদ্রিস। এ ঘটনায় গ্রামের অন্য কেউ জড়িত ছিল না।

জেলা পরিষদের সদস্য ও যদুনন্দী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুর রব মোল্যা বলেন, মামা-ভাগ্নেদের হামলা পাল্টা হামলার ঘটনাকে পুজি করে একটি কুচক্রীমহল গ্রামের নিরহ লোকজনের নামে মামলা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা করা হচ্ছে বলে শুনেছি। বিষয়টি খুবই দুঃখজনক।

সালথা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আশিকুজ্জামান বলেন, হামলা পাল্টা হামলার ঘটনায় ইমান আলীর পক্ষ থেকে থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। অপর পক্ষ এখনও মামলা বা অভিযোগ করেনি। এ ঘটনায় জড়িতদের আটকের চেষ্টা চলছে।#
ইউটিউব








মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

গনমাধ্যম

স্বাস্থ্য

বিশেষ সংবাদ

কৃষি ও খাদ্য

আইন ও অপরাধ

ঘোষনাঃ