চরভদ্রাসনে পদ্মায় মিললো ২০ কেজি ওজনের কাতল





প্রতিবেদক, টাইমসবাংলা.নেটঃ
চরভদ্রাসনে পদ্মা নদীতে মিললো ২০ কেজি ওজনের কাতল মাছ। উপজেলার চর হরিরামপুর ইউনিয়নের চর শালিপুর সংলগ্ন পদ্মা নদী থেকে এ মাছটি ধরা পড়ে জেলেদের জালে। পরে উপজেলার চর হরিরামপুর ইউনিয়নের ছমির ব্যাপারির ডাঙ্গী গ্রামের বাসিন্দা মাছটি ২২ হাজার টাকায় কিনে নেন।

যে জেলের জালে বিরাট আকারের এ মাছটি ধরা পড়ে তাঁর নাম রবি হালদার। তিনি পাবনা জেলার বেড়া উপজেলার বাসিন্দা। চরভদ্রাসন এলাকায় পদ্মা নদীতে মাছ শিকার করে জীবিকা নির্বাহ করেন তিনি।

রবি হালদার জানান, এই সময়ে পদ্মা নদীর চরভদ্রাসন অংশে বড় বড় আকৃতির পাঙ্গাস, কাতল, বাগআইড়, ডাই মাছ ধরা পড়ে। ওই মাছের আশায় আমরা ঘর বাড়ি ছেড়ে এই এলাকায় এসে মাছ শিকার করি। তিনি বলেন, অনেকদিন পর বড় আকৃতির একটি কাতল ধরতে পেরে খুব আনন্দ লাগছে।

শনিবার ভোর রাতে মাছটি জেলের জালে ধরা পড়ে। সকাল সাড়ে ৭টার দিকে হাজীগঞ্জ বাজারের আসেন জেলে রবি হালদার। হাজীগঞ্জ বাজারে মাছের আড়তদার শিবু মন্ডলের আড়তে এনে মাছটি রাখা হয়। ওই আড়ত থেকে মাছটি ১৮ হাজার ৫০০ টাকা দিয়ে কিনে নেন মাছ পাইকারি মাছ ব্যবসায়ী গোপল মন্ডল। পরে গোপাল মন্ডলের কাছ থেকে ক্রেতা আব্দুর রব ব্যাপারি ওই মাছটি কিনে নেন ২২ হাজার টাকা দিয়ে।

মাছ ক্রেতা আব্দুর রব ব্যাপারি বলেন, এত বড় মাছ সচারাচার ধরা পড়ে না। এ জন্য মাছটি দেখা মাত্রই কিনে ফেললাম।

চর হাজীগঞ্জ হাট বাজার ব্যবসায়ী বহুমুখী সমবায় সমিতির মো. কবিরুল আলম ব্যাপারি বলেন, বড় মাছ পাওয়ার আমাদের ঐতিহ্য, এটি আমাদের ভাগ্যেরও ব্যাপারে। সব জায়গায় বড় মাছ ধরা পড়ে না। বড় মাছ দেখে সবাই খেতে চায়। আমরাও উৎসবের আমেজ অনুভব করি।

উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা এস এম মাহমুদুল হাসান বলেন, অন্যান্য এলাকার পানি অপেক্ষা পদ্মা নদীর পানি মিঠা। এই সময় এ এলাকায় বড় বড় মাছ বেশি দেখা যায়। তিনি বলেন, নদীর মাছ বরাবরই সুস্বাধু। আর পদ্মা নদীর বড় কাতলের তো কোন তুলনাই চলে না। #







মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

বিশেষ সংবাদ

আইন ও অপরাধ

স্বাস্থ্য

কৃষি ও খাদ্য

গনমাধ্যম

ঘোষনাঃ