আবাসিক হোটেলে তরুনীকে গনধর্ষন, পালালো ম্যানেজার, আটক ৫





প্রতিবেদক, টাইমসবাংলা.নেটঃ
পটুয়াখালীর গলাচিপা পৌর শহরের ফেরীঘাট এলাকার একটি আবাসিক হোটেলে এক তরুনীকে গণধর্ষনের অভিযোগে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন ভিকটিমের পূর্ব পরিচিত শহিদুল, বশির গাজী, স্বপন, জীতেন ও খোকন ডাক্তার। এছাড়া পলাতক রয়েছে হোটেল ম্যানেজার মো. ফারুক। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ভিকটিমকে পটুয়াখালী মেডিকেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

গলাচিপা থানার পুলিশ পরিদর্শক(তদন্ত) হুমায়ুন কবির জানান, গজালিয়া এলাকার ১৯ বছরের ওই তরুনী বুধবার গলাচিপা উপজেলা সদরে ডাক্তার দেখাতে আসেন। ডাক্তার দেখানো শেষে বোন আসলে তার সাথে তাদের সোনাখালী গ্রামের বাড়ি যাবার কথা ছিলো। কিন্তু বোন না আসায় তরুনী নিজে একাই বোনের বাড়ি যাওয়ার জন্য ফেরীঘাট এলাকায় আসে। এসময় এলাকার পূর্বপরিচিত মো. শহিদুল সন্ধ্যার সময় বোনের বাড়ি না গিয়ে হোটেলে থাকার পরামর্শ দেন এবং হোটেল সৈকতে রুম ঠিক করে দেন।

রাত আটটার দিকে শহিদুল হোটেল ম্যানেজার ফারুককে নিয়ে ভিকটিমের রুমে আসে। এরপর পর্যায়ক্রমে অভিযুক্তরা ওই তরুনীকে ধর্ষন করে।

রাতেই এলাকাবাসী খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ভিকটিমকে উদ্ধার করে এবং অভিযুক্ত পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে। এসময়ে কৌশলে পালিয়ে যায় হোটেল ম্যানেজার ফারুক।

এই ঘটনায় ধর্ষিতা তরুনী বাদি হয়ে ছয়জনকে আসামী করে থানায় মামলা করেছে।#







মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

গনমাধ্যম

স্বাস্থ্য

বিশেষ সংবাদ

কৃষি ও খাদ্য

আইন ও অপরাধ

ঘোষনাঃ