ফরিদপুরে নিখোঁজের একদিন পরে প্রতিবন্ধী কিশোরী ফাতেমা’র লাশ উদ্ধার





ফরিদপুর প্রতিনিধি, ১৩ ডিসেম্বরঃ
ফরিদপুরে এক দিন নিখোঁজ থাকার পর প্রতিবন্ধী এক কিশোরীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে শহরের দক্ষিণ কালীবাড়ি মহল্লায় অবস্থিত বাংলাদেশ টেলিগ্রাম কার্যালয়ের চত্ত্বর থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। স্থানীয়দের ধারণা, ধর্ষণ শেষে শ্বাস রোধে হত্যা করা হয়েছে ওই কিশোরীকে।

প্রতিবন্ধী ওই কিশোরীর নাম ফাতেমা বেগম (১৪)। তার বাবার নাম এলাহি শরিফ। এলাহী শরিফ রিক্সা চালানোর পাশাপাশি সোনালী ব্যাংকের এটিএম বুথের গার্ড হিসেবে কাজ করেন। তিন মেয়ের মধ্যে ফাতেমা বড়। ফাতেমা জন্ম থেকেই বুদ্ধি প্রতিবন্ধী (অটিস্টিক)। ওই কিশোরী বাবার সাথে শহরের রাজেন্দ্র কলেজ সংলগ্ন এলাকায় একটি ভাড়া বাড়িতে বসবাস করতো।

ওই কিশোরীর বাবা এলাহি শরিফ জানান, গত বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টা থেকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। বৃহস্পতিবার রাতে এবং শুক্রবার সকাল ও দুপুরে কিশোরীর সন্ধান দেওয়ার জন্য শহরের মাইকিং করা হয়। জানানো হয় ফরিদপুর কোতয়ালী থানায়।

এলাকাবাসীর সুত্রে জানা গেছে প্রতিবন্ধী ওই কিশোরী কলেজ এলাকা দিয়েই সারা দিন ঘুরে ফিরে বেড়াতো। শুক্রবার সন্ধ্যায় টেলিগ্রাম অফিসের চত্ত্বরে সীমানা প্রচিরের পাশে ওই শিশুটির বিবস্ত্র মৃতদেহ দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। পরে কোতয়ালী থানার পুলিশ এসে লাশটি উদ্ধার করে।

ফরিদপুর কোতয়ালী থানার দ্বিতীয় কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) বেলাল হোসেন বলেন, ওই কিশোরীর গলায় কাপড় পেচানো ছিল। ধারনা করা যাচ্ছে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। তিনি বলেন, লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তিনি বলেন, ময়না তদন্তের প্রতিবেদন না পেলে নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না মৃত্যুর আগে ওই কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়েছিল কিনা। #



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

গনমাধ্যম

স্বাস্থ্য

বিশেষ সংবাদ

কৃষি ও খাদ্য

আইন ও অপরাধ

ঘোষনাঃ