ফরিদপুরের অটোচালক শওকতের তিন খুনী আটক, অটো উদ্ধার





টাইমসবাংলা.নেটঃ
গত ১৫ নভেম্বর ফরিদপুরের শহরের বাইপাস সড়কের পাশে ধান ক্ষেতের মধ্যে থেকে উদ্ধার করা হয় অটোচালক শওকত এর মরদেহ। তখন তার অটোবাইকটি না পাওয়ায় ধারনা করা হচ্ছিল, ছিনতাইকারীরা তাকে হত্যা করে অটোবাইকটি নিয়ে গেছে।

ঘটনার পরই তদন্তে নামে কোতয়ালী থানা পুলিশ। প্রযুক্তির সহায়তা ও গোয়েন্দা তৎপরতার মাধ্যমে হত্যাকারীদের শনাক্তকরাসহ চুরি যাওয়া অটোবাইকটি উদ্ধার করেছে পুলিশ। আটক ৩জনকে বৃহস্পতিবার আদালতে সোপর্দ করলে ৩ জনই ১৬৪ ধারায় স্বিকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে।

ফরিদপুর কোতয়ালী থানার উপ পরিদর্শক(এসআই) মো. বেলাল হোসেন জানান, গত ১৫ নভেম্বর শুক্রবার গোয়ালচামট মোল্যা বাড়ী সড়ক শেষ মাথায় বাইপাস সড়ক এর কাছে আবুল হোসেনের ধান ক্ষেতের মধ্যে ইজি বাইক চালক শওকত মোল্যার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

এরপর পুলিশ প্রযুক্তির সহায়তায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই/ মোঃ খায়রুল বাসার এর নেতৃত্বে এবং জেলার উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রত্যক্ষ তদারকির মাধ্যমে কোতয়ালী থানা পুলিশের একটি চৌকশ দল দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে গতকাল ২০ নভেম্বর ঢাকার গাবতলী বাস স্ট্যান্ড এলাকা থেকে সন্দেহ ভাজন হিসেবে পশ্চিম খাবাসপুর মাওলানা আব্দুল আলী সড়কের মো. সিদ্দিক মোল্যার ছেলে মো. জনি মোল্যা(২৫) ও সুফী আব্দুল বারী সড়কের মো শাহীন হাওলাদার এর ছেলে মো. মেহেদী আবু কাওছার(২০) কে আটক করে। পরে এই দুই জনের দেয়া তথ্য মতে রাজবাড়ী জেলার মজলিশপুর এলাকার মুরাদ শেখের ছেলে মো. বাদশা শেখকে আটক করা হয়। তাদের জিজ্ঞাসাবাদে ৩জনই শওকত হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বিকার করে। পরে তাদের দেয়া তথ্য মতে ছিনতাই করা অটোবাইকটি উদ্ধার করা হয়।

কোতয়ালী পুলিশের এই কর্মকর্তা আরো জানান, তাদের ২১ নভেম্বর আদালতে হাজির করা হলে ৩ জনই ১৬৪ ধারায় একে অপরের সহযোগিতায় শওকতকে হত্যা করে অটোবাইকটি চুরি করেছে বলে স্বিকারোক্তি দিয়েছে। তিনি জানান, আদালতের নির্দেশে তাদের জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে। #



মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

গনমাধ্যম

স্বাস্থ্য

বিশেষ সংবাদ

কৃষি ও খাদ্য

আইন ও অপরাধ

ঘোষনাঃ