ফরিদপুরের আলোচিত সহোদর বরকত-রুবেল ও পরিবারের সদস্যদের ৮৮টি ব্যাংক হিসাব জব্দের নির্দেশ





প্রতিবেদক, টাইমসবাংলা.নেটঃ
ফরিদপুরের আলোচিত দুই ভাই ও তাদের পরিবারের সদস্যদের সর্বমোট ৮৮টি ব্যাংক হিসাব জব্দ করা হয়েছে। মানি লন্ডারিং-এর অভিযোগে দায়ের করার মামলার তদন্ত কর্মকর্তার আবেদনের প্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক ইমরুল কায়েস বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে এ আদেশ দেন।

আদালত ওই আদেশে জব্দ করা হিসাবগুলি বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ) এর মহা ব্যবস্থাপককে তদন্ত করে দেখার আদেশ দিয়েছেন।

জব্দ হওয়া ওই ৮৮টি হিসাব ফরিদপুর শহর আওয়ামী লীগের বরখাস্ত হওয়া সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন ওরফে বরকত, তাঁর স্ত্রী আফরোজা আক্তার পারভীন এবং তাঁর শ্বশুর রেজাউল করিম ওরফে পান্নু এবং বরকতের ভাই ফরিদপুর প্রেসক্লাবের বরখাস্ত হওয়া সভাপতি ইমতিযাজ হাসান রুবেল, রুবেলের স্ত্রী সোহেলী ইমারোজ পুনম এবং তার (রুবলের) শ্বশুর আব্দুস সাদেক মুকুল এর নামে।

বরকত ও রুবেলের নামে মানি লন্ডারিং এর মামলা করে সিআইডি। সিআইডির ঢাকার পরিদর্শক এস এম মিরাজ আল মাহমুদ বাদী হয়ে গত ২৬ জুন ঢাকার কাফরুল থানায় মানি লন্ডালিং এর অভিযোগ এনে এ মামলাটি দায়ের করেন। এ মামলাটি তদন্ত করছেন ঢাকা মেট্রপলিটান পশ্চিম বাংলাদেশ পুলিশ সিআইডি ঢাকা এর সহকারি পুলিশ সুপার উত্তম কুমার বিশ্বাস।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে উত্তম কুমার বিশ্বাস বলেন, সিআইডি এ মানি লন্ডারিং মামরার তদন্তকালে বরকত ও রুবেলের ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান এবং তাদের পোষ্যদের নামে ৮৮টি ব্যাংক হিসাব পান। এ হিসাবগুলি জব্দ করার জন্য সিআইডি ঢাকা মাহানগর দায়রা জজ আদারতে আবেদন জানালে আদালত এ আদেশ দেন।

প্রসঙ্গত গত ১৬ মে রাতে ফরিদপুর জেলা আ.লীগের সভাপতি সুবল চন্দ্র সাহার বাড়িতে দুই দফা হামলার ঘটনা ঘটে। সুবল সাহার বাড়ি শহরের গোয়ালচামট মহল্লার মোল্লা বাড়ি সড়কে অবস্থিত। এ ঘটনায় গত ১৮ মে সুবল সাহা অজ্ঞাতনামা ব্যাক্তিদের আসামি করে ফরিদপুর কোতয়ালী থানাএকটি মামলাদায়ের করেন।

গত ৭ জুন রাতে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুবল চন্দ্র সাহার বাড়িতে হামলার মামলার আসামী হিসেবে শহরের বদরপুরসহ বিভিন্ন মহল্লায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ সাজ্জাদ, ইমতিয়াজসহ মোট নয়জনকে গ্রেপ্তার করে। #







মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

গনমাধ্যম

স্বাস্থ্য

বিশেষ সংবাদ

কৃষি ও খাদ্য

আইন ও অপরাধ

ঘোষনাঃ